দড়ি হাইরমারা গ্রামের মৃত মিজানুর রহমানের মেয়ে কিশোরী রিনা বেগম বলেন, ‘আমার বাবা নাই। আমরা অনেক কষ্টে চলাফেরা করি। আমার সৎ ভাই আমাদের দেখাশোনা করেন। সেখানে প্রতি মাসে স‍্যানিটারি ন‍্যাপকিনতো আমাদের দু:স্বপ্ন। প্রকল্প থেকে প্রতি মাসে ফ্রি ন‍্যাপকিন পাই। এখন সুস্থ‍্য আছি, কোনো অসুবিধা হচ্ছে না।’

শেলটেক গ্রুপের চেয়ারম্যান কুতুব উদ্দিন আহমেদের ব‍্যক্তিগত আর্থিক সহযোগিতায় প্রকল্পটি পরিচালনা করে প্রথম আলো ট্রাস্ট।