বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সীমাবিহারের তৃতীয় তলায় গড়ে তোলা হয় একটি পাঠাগার। ধর্মীয় গুরু সত্যপ্রিয় মহাথেরোর নামে পাঠাগারের নামকরণ করা হয় ‘পণ্ডিত সত্যপ্রিয় পাঠাগার’। সেখানে ৩০ হাজার বই রাখার উপযোগী একাধিক তাক এবং অন্তত ৪০ জন বসে পড়ার মতো টেবিল-চেয়ার যুক্ত করা হয়। তথ্যপ্রযুক্তি ও কম্পিউটার শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে পাঠাগারে স্থাপন করা হয় চারটি কম্পিউটার।

করোনা মহামারি শুরু হলে পাঠাগারটি বন্ধ ছিল। সম্প্রতি পাঠাগারটি শিক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়। প্রতিদিন সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত খোলা থাকে পাঠাগারটি।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন