বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সকাল ১০টায় রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের বাবুডাইং গ্রামে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে প্রদর্শন করে বিদ্যালয়ের স্কাউট সদস্যরা। আটটি মনোরম পিটি-প্যারেড প্রদর্শন করে স্কাউট সদস্যরা। কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে ও পিটি-প্যারেড পরিচালনা করেন স্কাউট শিক্ষক সাঈদ মাহমুদ। পরে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের বাইরে উন্মুক্তভাবে সকল বয়সী নারীদের জন্য দড়ি টানা প্রতিযোগিতা, পুরুষদের জন্য ঐতিহ্যবাহী তীর নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা ও যেমন খুশি তেমন সাজো প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে প্রতিযোগিতা হয়। এর মধ্যে প্রাক প্রাথমিক শ্রেণির বালক-বালিকাদের নিয়ে বিস্কুট দৌড়, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির জন্য ঝুড়িতে বল নিক্ষেপ ও জলে-ডাঙায়, তৃতীয় থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে মোরগ লড়াই ও দড়ি খেলা, ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির জন্য বস্তা দৌড় ও স্মৃতি পরীক্ষা, অষ্টম থেকে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নিয়ে ২০০ মিটার দৌড়, বালিশ খেলা অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষকদের জন্য ছিল হাঁড়িভাঙা খেলা।

default-image

আলোচনা সভায় গ্রাম্য মোড়ল কার্তিক কোল টুডুর সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন বাবুডাইং আলোর পাঠশালার প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক কানাই চন্দ্র দাস, প্রধান শিক্ষক আলী উজ্জামান নূর, গ্রাম্য মোড়ল চানু হাসদা, বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শংকর চন্দ্র দাস, লুইস মুর্মু, সহকারী শিক্ষক সোনিয়া খাতুন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সহকারী শিক্ষক শিরিনা খাতুন।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের শুরুতে শতভাগ উপস্থিত শিক্ষার্থীদের পুরস্কৃত করা হয়। পরে সকল বিজয়ীদের পুরস্কার দেওয়া হয়। এ ছাড়া যেমন খুশি তেমন সাজো ও মেয়েদের রশি টানা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকলকে পুরস্কার দেওয়া হয়।

লেখক: আলী উজ্জামান নূর, প্রধান শিক্ষক,বাবুডাইং আলোর পাঠশালা

আলোর পাঠশালা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন