default-image

‘ইংরেন বয়হাওয়াঃ মেয়োমতে রাংগোয়াঃ ইকুশ না: ফেব্রুয়ারি, ইংকি আত হিরিং ইং....’ অর্থাৎ ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি.....’। কোল ভাষা ও বাংলা ভাষায় প্রভাতফেরিতে একুশের গানটি গাওয়া হয়। এমন করেই রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার ‘বাবুডাইং আদিবাসী আলোর পাঠশালার’ কোল জাতিগোষ্ঠীর শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে। প্রথম আলো ট্রাস্ট পরিচালিত ছয়টি স্কুলের মধ্যে অন্যতম স্কুল এই বাবুডাইং আলোর পাঠশালা। কোল জাতিগোষ্ঠীর ছেলেমেয়েদের শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিচ্ছে এই স্কুল। এখানে বিনা মূল্যে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করে।

বিজ্ঞাপন
default-image

দিবসটি উপলক্ষে সাত দিন আগে থেকেই শিক্ষার্থীরা দূর থেকে মাটি নিয়ে এসে শহীদ মিনারের বেদি তৈরি করে। এরপর বাঁশ-কঞ্চি দিয়ে শহীদ মিনার তৈরি করে। বেদি প্রাঙ্গণে আলপনা আঁকে। এ ছাড়া বিদ্যালয়ের মাটির দেয়ালও লেপে ঝকঝকে করে তাতেও আলপনা আঁকা হয়। এরপর রোববার সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে প্রভাতফেরি বের করা হয়। এতে সকল শিক্ষার্থী, গ্রামবাসী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ বন্ধুসভার বন্ধুরাও অংশ নেয়।

default-image

গ্রামের মোড়ল কার্তিক কোল টুডুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কানাই চন্দ্র দাস, গ্রামের মোড়ল সুরেন কোল টুডু, তরিকুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রথম আলো বন্ধুসভার উপদেষ্টা আজিজুর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক আনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী উজ্জামান নূর।

বিজ্ঞাপন
প্রথম আলো ট্রাস্ট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন