বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আলোকছত্র উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোপাল চন্দ্র দাস, সরনজাই উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শফিকুর রহমান, প্রথম আলো ট্রাস্ট পরিচালিত রাজশাহী আলোর পাঠশালার প্রধান শিক্ষক রেজিনা খাতুন, প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক আবুল কালাম মুহম্মদ আজাদ, লক্ষ্মীপুর বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও প্রথম আলো বন্ধুসভা রাজশাহীর উপদেষ্টা ফারুক হোসেন, রাজশাহী বন্ধুসভার সভাপতি বেলাল হোসেন, বন্ধুসভার বন্ধু সুকন্যা খন্দকার, ফরহাদ হোসেন, সুজন মাহমুদ, ঔড়ব আজাদ প্রমুখ।

default-image

প্রধান শিক্ষক গোপাল চন্দ্র দাস বলেন, প্রথম আলো সব সময় সংবাদ পরিবেশনের পাশাপাশি সমাজসেবামূলক কাজ করে থাকে। বন্যার সময় তারা পীড়িত মানুষের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে হাজির হয়। শীতের সময় শীতার্তদের মধ্যে কম্বল নিয়ে হাজির হয়। প্রথম আলোর গণিত অলিম্পিয়াড সারা দেশের শিক্ষার্থীদের এখন স্বপ্ন দেখায়। তিনি বলেন, প্রথম আলোর উদ্যোগের কারণেই অ্যাসিডদগ্ধ নারীরা নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখছে। তাদের অ্যাসিডবিরোধী অবস্থানের কারণেই দেশে অ্যাসিড নিক্ষেপের হার কমে গেছে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের পাশাপাশি এ ধরনের সামাজিক উদ্যোগ আর ভালোভাবে চলুক এ প্রত্যাশা রাখি।

সরনজাই উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শফিকুর রহমান বলেন, ‘প্রসাদ পাড়া, আদিবাসী পাড়া, বড় পলাশী, ছোট পলাশী ও আলোকছত্র গোদাগাড়ীর সবচেয়ে নিভৃত গ্রাম। প্রথম আলো এ গ্রামগুলোর গরিব মানুষদের শীতবস্ত্র দেওয়ার জন্য যে খুঁজে বের করেছে, এ জন্য এলাকার মানুষের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই। তারা জেলা শহর থেকে গ্রামের এত ভেতরে এসে কীভাবে দুস্থ মানুষদের তালিকা তৈরি করেছে, এটা দেখেই অবাক লাগছে। প্রথম আলোর জন্য শুভকামনা রইল।’

শীতার্ত মানুষের সহযোগিতায় আপনিও এগিয়ে আসতে পারেন। সহায়তা পাঠানো যাবে ব্যাংক ও বিকাশের মাধ্যমে।

হিসাবের নাম: প্রথম আলো ট্রাস্ট/ত্রাণ তহবিল

হিসাব নম্বর: ২০৭ ২০০ ১১১৯৪

ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, কারওয়ান বাজার শাখা, ঢাকা।

অথবা

বিকাশে পেমেন্ট করতে পারেন: ০১৭১৩-০৬৭৫৭৬ এই মার্চেন্ট অ্যাকাউন্ট নম্বরে।

প্রথম আলো ট্রাস্ট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন