default-image

পুনঃস্থাপনের কাজ এগিয়ে চলছে চরখিদিরপুর আলোর পাঠশালার। আগে পাঠশালাটি ছিল পবা উপজেলার চরখিদিরপুর এলাকায় ।বন্যায় চরখিদিরপুর এলাকার মানুষের বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হওয়ায় ও শিক্ষার্থী এবং অভিভাবক তাদের বাসস্থান অন্যত্র স্থানান্তর করার ফলে বিদ্যালয়টিকে নতুন করে স্থাপন করা হচ্ছে।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ২৪ নম্বর ওয়ার্ড শহীদ মিনার তালাইমারীতে। তালাইমারী শহীদ মিনারের সামনে নিজস্ব কোন জায়গা না থাকায় জেলা প্রশাসন থেকে প্রাপ্ত ১১ কাঠা জমিতে এই বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজ চলছে। জায়গাটা পদ্মা নদীর তীরে মনোরম পরিবেশ।পাঠশালা নির্মাণ করার স্থানে কয়েকটা পরিবারের বাড়ি ছিল। ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মাধ্যমে তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

জায়গাটা নিঁচু হওয়ায় সে জায়গাটা মাটি কেটে ও বালি দিয়ে ভরাট করে সমান করা হয়েছে। বিদ্যালয়টি ৬টি কক্ষ।এর ৪টি কক্ষ উত্তর দক্ষিণে, আর ২কক্ষ টি পূর্ব পশ্চিমে। কক্ষগুলো টিনের তৈরি। এর চারপাশে টিন দিয়ে ঘেরা মাথার উপর চালও টিন।ঘরের মাঝে পাকা পিলার দেওয়া আছে। রয়েছে নিজস্ব মাঠ। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে ৬ টি বাথরুম। এর মধ্যে ২ টি শিক্ষকদের, ২ টি মেয়েদের আর ২ টি ছেলেদের ব্যবহারের জন্য। বিদ্যালয়ের মাঠে আছে একটি টিউবওয়েল, যা বিশুদ্ধ পানির চাহিদা পূর্ণ করে। বিদ্যালয়ের সামনে একটা শহীদ মিনার রয়েছে। সেটা বিদ্যালয়ের না হলেও বিভিন্ন জাতীয় দিবসে শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন করে থাকেন।

বাংলাদেশের প্রত্যন্ত এলাকায় যেখানে বহুদিন শিক্ষার আলো পৌঁছায়নি এরকম অবহেলিত কয়েকটি এলাকায় শিক্ষার আলো পৌঁছে দিচ্ছে প্রথম আলো ট্রাস্ট। সামিট গ্রুপের আর্থিক সহায়তায় প্রথম আলো ট্রাস্ট বর্তমানে রাজশাহী চরখিদিরপুর আলোর পাঠশালাসহ ৬ টি স্কুল পরিচালনা করছে।

প্রথম আলো ট্রাস্ট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন