‘এই কয়ডা দিন তো বাঁচতে হইব’

জুনের মাঝামাঝি থেকে তুরাগ ও বংশী নদ-নদের পানি উপচে আশপাশের গ্রামগুলো প্লাবিত হয়। এতে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার ঢালজোড়া ইউনিয়নের পাঁচ শতাধিক বাড়িঘর ডুবে যায়। বাড়ি থেকে পানি নেমে গেলেও খেত, মাঠসহ নিচু এলাকাগুলো এখনো পানিতে থই থই করছে। কর্মহীন হয়ে আছে বহু পরিবার। অভাব দেখা দিয়েছে ঘরে ঘরে।

প্রথম আলো ট্রাস্টের উদ্যোগে গত রোববার সকালে ঢালজোড়া ইউনিয়নের পানিবন্দী ১৫টি গ্রামের ১০০ পরিবারের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। ত্রাণ কার্যক্রমে অংশ নেন ঢালজোড়া ইউপির চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান, ইউপি সদস্য সুরুজ মিয়া, মো. হান্নান, মো. আজমসহ গাজীপুরের প্রথম আলোর বন্ধুসভার সদস্যরা।

বিজ্ঞাপন

ত্রাণ নিতে আসা সাদুল্লাহপুর গ্রামের আফাজ উদ্দিন (৬০) জানান, দুই মাস ধরে পানিবন্দী। ঘরের জমানো টাকাও এর মধ্যেই শেষ হয়ে গেছে। সংসার চলছে ধারদেনা করে। তিনি বলেন, ‘খেতে কাম কইরা খাই। খেত এহন পানির নিচে। হের লাইগা কামও নাই। পানি চইলা গেলে আবার কাম করন যাইব। তয় এই কয়ডা দিন তো বাঁচতে হইব।’

মন্তব্য পড়ুন 0