জীবন আলীর মা বলেন, ‘হামার ব্যাটার পড়ালেখা করার খুব ইচ্ছা। আর আলোর পাঠশালা না থাকলে হামার বেটার পড়ালেখা হতো না। স্কুলত ভর্তি করাতে হামার কোন টাকা-পয়সা লাগিনি। আবার পড়াতে কোন খরচও দিতে হয় না।স্কুলত থেকে মেলাই উপহার পাইছি । শুধু তাই লয়, মাস্টারেরা মাঝে মধ্যে মোবাইলত কল দিয়ে হামার বেটার পড়ালেখার খোঁজ খবর লেই।' জীবন এবার এস.এস.সি-২০২২ পরীক্ষায় অংশগ্রহন করবেন। ২০১৯ সালেও পরীক্ষার সময় বাবা পরীক্ষা কেন্দ্রে নিয়ে গেছেন জীবনকে। এবার হয়তো জীবন একাই যাবেন পরীক্ষা কেন্দ্রে বা মা দাঁড়িয়ে থাকবেন দূরে। কিন্তু জীবন বিশ্বাস করেন তাঁর বাবার আশীর্বাদ আছে তাঁর সঙ্গে। সকলের শুভকামনা থাকবে জীবনের জন্য।

আলোর পাঠশালা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন