প্রথম আলো ট্রাস্ট-সা'দত স্মৃতি পল্লী

নেইল কাটার পেল শিশু বিকাশ কেন্দ্রের শিশুরা

বিজ্ঞাপন
default-image

নরসিংদীর রায়পুরার প্রত্যন্ত এলাকা চরসুবুদ্ধির একজন অতিদরিদ্র কৃষকের মেয়ে জুলেখা (১২)। ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েটির নাচ, গান ও কবিতা আবৃত্তি শেখার খুব আগ্রহ। সপ্তাহে দুদিন প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরের প্রথম আলো ট্রাস্ট-সা'দত স্মৃতি পল্লীতে এসে  শিশু বিকাশ কেন্দ্রে এসবের প্রশিক্ষণ নেয়।

একদিন জুলেখার আঙুলের নখের কোনায় ময়লা দেখে ট্রাস্টের কর্মকর্তাদের প্রশ্ন, কিভাবে নখ কাটো?  জুলেখার উত্তর, আমি কোনদিন নেইল কাটার পাইনি তাই সব সময়ই ব্লেড দিয়ে নখ কাটি। সংস্কৃতিচর্চার প্রতি ব্যাপক আগ্রহ থাকলেও অভাবের কারণে অস্বাস্থ্যকর জীবন-যাপনে অভ্যস্ত হয়ে উঠছিল সে। এমন অবস্থা শিশু বিকাশ কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ নিতে আসা ৩৩ জন শিশু-কিশোরের।  

জুলেখার মত ৩৩ জন সুবিধা বঞ্চিত অতিদরিদ্র পরিবারের শিশু কিশোরের হাতে প্রথম আলো ট্রাস্টের উদ্যোগে নেইল কাটার তুলে দেওয়া হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রায়পুরার দড়ি হাইরমারা গ্রামের প্রথম আলো ট্রাস্ট-সা'দত স্মৃতি পল্লীতে এই ব্যতিক্রমী আয়োজন করা হয়। ওই শিশু-কিশোরেরা স্থানীয় ৬টি বিদ্যালয়ের ৫-১২ বছর বয়সী শিক্ষার্থী।

অনুষ্ঠানে শিশু-কিশোরদের হাতে নেইল কাটারগুলো তুলে দেন প্রথম আলো ট্রাস্ট-সা'দত স্মৃতি পল্লীর প্রজেক্ট অফিসার বেলায়েত হোসেন, প্রজেক্ট ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম ও শিশু বিকাশ কেন্দ্রের প্রশিক্ষক প্রিয়াঙ্কা খানম। নেইল কাটার হাতে পেয়ে জুলেখা বলে, ব্লেড দিয়ে নখ কাটলে সমান করে কাটা যায় না। নখের কোনায় ময়লা জমে থাকে। এসবের কারণে অসুখ-বিসুখ হয়। এখন থেকে নিয়মিত নেইল কাটার দিয়ে নখ কাটবো।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন