default-image

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পাহাড়ের পাদদেশে সিলেটের জাফলং। সীমান্তের ওপার থেকে নেমে আসা ডাউকি মিলিত হয়েছে বাংলাদেশের পিয়াইন নদে। পাহাড়ে ভারী বৃষ্টি হলেই ঢল নামে পিয়াইনে। তখন ঢলের তোড়ে পুরো জাফলং বন্যাকবলিত হয়ে পড়ে। গত মে থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চার মাসে সাত দফা বন্যা হয়েছে।

এই বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত জাফলংয়ের মেলার মাঠ এলাকার শ্রমজীবী লিলি মাল (৩৪)। গত বৃহস্পতিবার তিনিসহ জাফলংয়ের নিচু এলাকার চার গ্রামের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের ১০০ জনের মধ্যে প্রথম আলো ট্রাস্টের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। ত্রাণের প্যাকেটে ছিল চাল, আলু, ডাল, তেল ও লবণ।

বিজ্ঞাপন

ত্রাণ পেয়ে লিলি বলেন, ‘পানি এখন নাই। কিন্তু আমরার পাশে কেউ নাই। এই খাবার কিছুদিনের লাগি স্বস্তি দেবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরারে তো পাহাড়ি ঢলেই কাবু করে রাখে ছয় মাস।’

জাফলংয়ের আমির মিয়া উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ প্রাঙ্গণে ত্রাণ বিতরণে অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুস সাকিব, জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমান, বাপার সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবদুল করিম চৌধুরী, আমির মিয়া উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান, গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি এম এ মতিন, প্রথম আলো সিলেট বন্ধুসভার সভাপতি তামান্না ইসলামসহ বন্ধুসভার সদস্যরা।

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগিতায় আপনিও এগিয়ে আসতে পারেন।

হিসাবের নাম: প্রথম আলো ট্রাস্ট/ত্রাণ তহবিল

হিসাব নম্বর: ২০৭২০০১১১৯৪

ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, কারওয়ান বাজার শাখা, ঢাকা।

মন্তব্য পড়ুন 0